পেন্সিল স্কেচ ০৩

0

ক্লাস ওয়ান শেষ না করে যেমন ক্লাস টুতে ওঠা যায় না তেমনি, পেন্সিল স্কেচ এর বেসিক জিনিষগুলো না বুঝে পরবর্তী ক্লাস গুলোতে যাওয়া যাবে না। আজকের ক্লাসে আমরা যা নিয়ে আলোচনা করব তা হল কিভাবে পেন্সিল ধরতে হয়। স্বাভাবিকভাবে সবার মনে আসতে পারে, পেন্সিল ধরার ক্ষেত্রে আবার আলাদা কোন ব্যাকরণ আছে নাকি। না নেই, যদি আপনি সাধারণ লিখার জন্য লিখতে চান তাহলে কোন ব্যাকরন প্রয়োজন নেই। কিন্তু যদি আপনি পেন্সিল স্কেচ করতে চান তাহলে আপনাকে এই ব্যাকরণ গুলো জানতে হবে। আসুন এবার আমরা জেনে নেই পেন্সিল ধরার সেই পদ্ধতিগুলো।

ট্রাইপড গ্রিপ:

এই পদ্বতিতে আমরা সাধারণত সবাই পেন্সিল ধরে থাকি। তবে খুব নরম বা খুব শক্ত করে পেন্সিল ধরা ঠিক নয়। তাহলে পেন্সিল ব্যালেন্স করতে সমস্যা হবে। ট্রাইপড গ্রিপে কখনই খাড়া করে পেন্সিল ধরা যাবে না। তিনটি আঙ্গুল ও হাতের উপর ভারসাম্যের সঙ্গে ধরতে হবে পেন্সিলটি। শুধু মাত্র আঁকার সুবিধার জন্য নয় পেন্সিল সঠিকভাবে ধরার মাধ্যমে আমাদের ব্রেনের মোটর নিউরনগুলো সতঃস্ফুত ভাবে কাজ করে যা পেন্সিল স্কেচ এর জন্য সহায়ক।

এক্সটেন্ডেড গ্রিপ:

পেন্সিল ধরার এই নিয়মটি ট্রাইপড গ্রিপের মতই। কিন্তু এই নিয়মে পেন্সিলটিকে আরও উপরে ধরতে হবে। এই পদ্ধতিতে পেন্সিল ধরার ফলে আপনি হাতের খুব কম মুভমেন্টে অনেক বেশি আঁকতে পারবেন।

আন্ডারহ্যান্ড গ্রিপ:

নাম পড়েই বুঝা যায় এই পেন্সিল ধরার নিয়মটির ব্যাপারে। তিন আঙ্গুল দিয়ে ট্রাইপড গ্রিপ ধরার মত করেই ধরতে হবে কিন্তু পেন্সিলটি থাকবে হাতের তালুতে। এই পদ্ধতিতে পেন্সিল ধরা খুব সহজ। সাধারণত বোর্ডে আঁকার জন্য এভাবে পেন্সিল ধরা হয়। হালকা দাগ টানতে এই গ্রিপের ব্যাবহার করা হয়।

 

ওভারহ্যান্ড গ্রিপ:

এই পদ্ধতিটি আন্ডার হ্যান্ড গ্রিপের ঠিক উল্টো। এই পদ্ধতিতে পেন্সিল ধরাটা এবং ভারসাম্য রাখা খুবই সহজ। এই গ্রিপের সাহায্যে দাড়িয়ে বসে সব ভাবেই ছবি আকা সহজ। ছবিতে শেড আনতে ওভারহ্যান্ড গ্রিপ পদ্ধতি ব্যাবহার করা হয়।

Comment

comments

Comments are closed.