কালার সাইকোলজি ইন মার্কেটিং

0

মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আমরা কোন কালারটি বেছে নেবো? কেন আমরা একটি রঙ পছন্দ করবো ? আমাদের মাথায় কি কোনো আলাদা মার্কেটিং এর চিন্তা আছে ? রঙ আমাদের দর্শককে নির্দিষ্ট ম্যাসেজ দিতে পারে; এটা গুরুত্বপূর্ণ ভিজুয়াল আকর্ষণ তৈরি করে। আপনি কি জানেন যে এই ম্যাসেজটা কী?

Colour-Technology-2

মার্কেটিং এর ডিজাইনের সময় বুদ্ধিমানের মতো রঙের মানসিকতা বুঝে বাছাই করতে হবে। বিজনেস কার্ড, ভাউচার, ওয়েবসাইট যাই হোক না কেন তা ভিন্ন রঙের হয়ে থাকে। আর রঙ শুধু জিনিসটির গুরুত্বই বাড়ায় না, বরং আমাদের আচরণেও প্রভাব ফেলে। আর যদি আমরা আমাদের টার্গেট কাস্টমারের মানসিকতা বুঝতে পারি তাহলে রঙ বাছাই করাটা অনেক সহজ হয়ে যাবে।
যেমন, আমরা লক্ষ্য করবো যে, ফাস্টফুডের রেস্টুরেন্টগুলো গাঢ় লাল ও কমলা রঙ দিয়ে ডেকোরেশন করা থাকে। গবেষণা বলে যে, এই রঙ দুটি দ্রুত খেয়ে স্থান ত্যাগ করার নির্দেশ। ফাস্টফুডের রেস্টুরেন্টে এমনই হওয়া উচিত তাই এ রঙ দুটি ব্যবহার করে থাকে।
এডাল্ট ওয়েব সাইটগুলোতে পাবেন অনেক লাল ও কালো রঙের সমাহার। বস্তুত এটা যৌন আবেদন নির্দেশ করে।
বাচ্চাদের বই বা খেলনাতে থাকে উজ্জল রঙের ব্যবহার। শিশুরা এমন রঙ ইতিবাচকভাবে সহজেই ধারণ করতে পারে এবং তা প্রয়োগের চেষ্টা করে।

সংস্কৃতি ভেদে রঙের অর্থ ও ব্যবহার ভিন্ন হয় বলে টার্গেট অডিয়েন্সের রুচি ও সংস্কৃতি অনুযায়ী রঙের প্রয়োগ ঘটাতে হবে।
যেমন, চায়না সংস্কৃতিতে সাদা হলো মৃত্যুর রঙ, কিন্তু ব্রাজিলে মৃত্যুর রঙ হলো বেগুনি। চীনে হলুদ রঙ পবিত্রতার প্রতীক, কিন্তু গ্রিসে তা দুঃখ এবং ফ্রান্সে তা ঈর্ষার প্রতীক। উত্তর আমেরিকায় সবুজ মূলত ঈর্ষা বোঝায়। উত্তর আমেরিকায় মূলধারার সংস্কৃতিতে নিচের রঙগুলো এই ধরনের অর্থ প্রকাশ করে থাকে।
লাল – উত্তেজনা, শক্তি, যৌন, আবেগ, গতি, বিপদ
নীল – (সবচেয়ে জনপ্রিয় রঙ হিসাবে তালিকাভুক্ত) বিশ্বাস, নির্ভরযোগ্যতা, একাত্মতার, অমিল
হলুদ – উষ্ণতা, রোদ, খাওয়াদাওয়া, সুখ
কমলা – উষ্ণতা, স্পন্দনশীল
সবুজ – প্রকৃতি, তাজা, শান্ত, বৃদ্ধি, প্রাচুর্য
বেগুনি – রাজকীয়, আধ্যাত্মিকতা, মর্যাদা
পিঙ্ক – নরম, মিষ্টি, শিক্ষাদান, নিরাপত্তা
হোয়াইট – হালকা, তেজী, বিশুদ্ধ, কুমারী, পরিষ্কার
কালো – কুতর্ক, মার্জিত, প্রলোভনসঙ্কুল, রহস্য
গোল্ড – প্রতিপত্তি, ব্যয়বহুল
সিলভার – প্রতিপত্তি, ঠাণ্ডা, বৈজ্ঞানিক

মার্কেট গবেষকদের মতে, কাস্টমারের কেনাকাটার বিষয়টি অনেকটাই রঙের উপর নির্ভর করে। সাধারণত ইমপালস কাস্টমাররা লাল, কমলা, কালো এবং গাঢ় নীল রঙ দেখে প্রভাবিত হয়ে থাকে। অনেকটা রঙ দ্বারা প্ররোচিত হয়েই তারা কোনো অপ্রয়োজনীয় জিনিস কিনে থাকে। যারা বাজেট করে শপিং করে তারা মূলত গোলাপী, হালকা নীল, নেভি ব্লু এ ধরনের রঙের বিষয়ে আকৃষ্ট হয়ে থাকে। আর ট্রেডিশনাল ক্রেতারা হালকা গোলাপী, গোলাপী, আকাশি রঙ পছন্দ করে।

অর্নব নাসির ছাত্রী (ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়)

অর্নব নাসির ছাত্রী (ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়)

অর্নব নাসির, ছাত্রী (ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়)

Comment

comments

Comments are closed.